Any Question?

+8801856991116 / +8801714092903
পিম্পলের সিম্পল সমাধান

পিম্পলের সিম্পল সমাধান

ব্রন ত্বকের জন্য একটি বিশাল সমস্যা । সাধারণত টিন এজ বয়স থেকেই ব্রণের সামস্যা শুরু হয়। তবে কোনও কোনও ক্ষেত্রে এর পরেও ব্রণের সমস্যা দেখা দিতে পারে। আমাদের অনেকেরই ধারণা  যে, তৈলাক্ত ত্বকেই ব্রণর সমস্যা বেশি দেখা যায়।  কিন্তু এটা একদমই ঠিক নয়। শুধু তৈলাক্ত ত্বক নয়, শুষ্কো থেকে সেনসিটিভ সব ধরনের ত্বকেই ব্রনের সমস্যা দেখা যেতে পারে। তাই এক এক ধরনের ত্বকের জন্য রয়েছে এক এক ধরনের সমাধান।  

 

তৈলাক্ত ত্বকঃ 

 

 

 

 

 

বেসন ও টক দইয়ের প্যাক :  বেসন ও টক দই এই দু’টোই ত্বকের জন্য খুব উপকারী এবং সহজলভ্যও। বেসন ও টক দই সহজেই ত্বকের অতিরিক্ত তেল পরিষ্কর করে এবং ত্বককে নরম ও মসৃণ করে। এই প্যাকটির জন্য একটি পাত্রে দুই টেবিল চামচ বেসন এবং এক টেবিল চামচ ঘরে পাতা টক দই নিয়ে একটু ঘন করে একটা প্যাক তৈরি করে নিন । এর পর ঐ প্যাকে দুই ফোঁটা পাতি লেবুর রস এবং এক চিমটে হলুদ গুঁড়ো দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন । এর পর ভাল করে মুখ পরিষ্কার করে মুখে ও গলায় ভাল করে প্যাকটি লাগিয়ে নিন এবং ১৫ মিনিট রাখে দিন । প্যাক একটু শুকিয়ে গেলে উষ্ণ পানি দিয়ে হালকা করে ঘষে-ঘষে প্যাকটি তুলে নেবে। এতে ত্বকের মৃত কোষগুলিও চলে যাবে। এর পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ভাল করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এই পদ্ধতিটি সপ্তাহে দুই বার করার পর ব্রণ কমে গেলে ১৫দিন পর পর একবার করলেই হবে। 

লেবু ও মধুর প্যাক : একটি পাত্রে এক টেবিল চামচ পাতিলেবুর রস এবং এক টেবিল চামচ মধু এক সাথে  মিশিয়ে নিয়ে একটি ঘন প্যাক বানিয়ে নিন । এর পর মুখ পরিষ্কার করে একটু কটন বল দিয়ে ঐ প্যাক পুরো মুখে লাগিয়ে নিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে দিন । এর পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ভাল করে মুখ ধুয়ে নিন। এতে চটজলদি ব্রণের সমস্যা অনেকটাই কমে যাবে এবং মুখে জেল্লাও আসবে। এছাড়া এর ফলে ব্রণের দাগও চলে যাবে। এই পদ্ধতিটি প্রতিদিন করতে পারেন এবং ব্রণ চলে গেলে সপ্তাহে দু’দিন করা যেতে পারে।

 

শুষ্ক ত্বক  ও স্বাভাবিক ত্বক : 

 

মুলতানি মাটির প্যাক : একটি পাত্রে দুই চামচ মুলতানি মাটি, এক টেবিল চামচ ঘরে পাতা টক দই, অল্প মধু এবং কয়েক ফোঁটা গ্লিসারিন এক সঙ্গে নিয়ে একটা প্যাক তৈরি করে নিন । এর পর মুখ ও গলা কোনও মাইল্ড ফেসওয়াশ দিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন এবং প্যাকটি  লাগিয়ে নিন । ১০-১৫ মিনিট রেখে পানি দিয়ে হালকা করে ঘষে-ঘষে প্যাক তুলে নিন ।

 

 

পুদিনা ও নিম পাতার প্যাকএকটি পাত্রে কিছুটা পুদিনা পাতা ও নিমপাতা এক সঙ্গে পেস্ট করে নেবে। এরপর, এর সঙ্গে কমলা লেবেুর খোসা পেস্ট করে মিশিয়ে নেবে। সাথে মেশাবেন কিছুটা মধু ও ঘরে পাতা টক দই। এর পর প্যাকটি তৈরি করে মুখে ও গলায় ভাল করে লাগিয়ে নিন। ১৫ মিনিট রেখে তারপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক ব্যবহারে ব্রণ কমবে  এবং ত্বকের আর্দ্রতাও বজায় থাকবে।

 

সেনসিটিভ ত্বক:

 

আপেল ও মধুর প্যাক : অর্ধেকটা আপেল নিয়ে  ভাল করে পেস্ট করে নিন। এর পর তাতে কিছুটা মধু মিশিয়ে একটা প্যাক তৈরি করে নিন । মধু ব্যবহারের ফলে একটু চিটচিটে হতে পারে তাই চাইলে প্যাকে অল্প জল মিশিয়ে নিতে পারেন । ঐ প্যাক মুখে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে ভাল করে মুখ ধুয়ে নিন। এতে ব্রণও চলে যাবে এবং ত্বকের লালচে ভাবও চলে যাবে।

 

নিম পাতার প্যাক : ব্রণের সমস্যা দূর করতে নিমপাতাকে সবথেকে উপকারী বলে মনে করা হয় । একটি পাত্রে কিছুটা নিম পাতার পেস্ট বা নিমপাতার গুঁড়ো নিয়ে তার সঙ্গে এক টেবিল চামচ মুলতানি মাটি, এক চিমটে হলুদ গুঁড়ো এবং কিছুটা কাঁচা দুধ মিশিয়ে একটা প্যাক তৈরি করে নিন। এই প্যাক মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে উষ্ণ জলে মুখ ধুয়ে নিন। এর পর ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

 

 এই কাজ গুলো করলে আসা করি ব্রনের সমস্যা দূর হবে। 

Posted on: 21-Nov-2016

Recent Post

Latest Comment

Add to Cart